পাসপোর্ট সম্পর্কিত যে তথ্যগুলি জানতেই হবে

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমস্ত সদস্যের কাছে লাল পাসপোর্ট রয়েছে। পাসপোর্টের সূচক পরিচালিত আর্টন গ্রুপের ভাইস প্রেসিডেন্ট হারেন্ট বোঘোসিয়ানের মতে, লাল পাসপোর্টগুলি একটি কমিউনিস্ট অতীতকেও ইঙ্গিত করতে পারে।

পাসপোর্ট সম্পর্কিত যে তথ্যগুলি জানতেই হবে

 

বিশ্বের প্রতিটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশেরই নিজস্ব সীমারেখা আছে। এই সীমারেখা পার করে এক দেশের নাগরিক চাইলেই অন্য দেশের সীমারেখা অতিক্রম করতে পারেনা। সেই জন্য তাকে সেই দেশের সরকারের অনুমতি নিতে হয়। আর এই অনুমতি পত্রের বৈধ কাগজের সমাহারই হলো পাসপোর্ট। পাসপোর্টগুলি সাধারণত বিশ্বের সাথে আমাদের যোগাযোগের সূত্র হিসেবে কাজ করে, ভ্রমণকারীদের বিদেশে যেতে এবং তাদের গন্তব্যে পৌঁছানোর অনুমতি দেয়,ভ্রমণকে করে তোলে নিরাপদ। প্রতিটি দেশের নিজস্ব অনন্য বুকলেট রয়েছে। কিন্তু আজ থেকে বহু বছর পূর্বে পাসপোর্টের আকৃতি, রূপ এমন ছিলোনা।

 

বুক অফ নেহেমিয়াতে পারস্যের রাজা প্রথম আরটাজেরেস জুডিয়ার ভিতর দিয়ে নিরাপদে চলাচলের মধ্য দিয়ে জুডিয়ার সরকারি কর্মকর্তাকে একটি চিঠি দিয়েছিলেন। এটাই প্ৰথম পাসপোর্ট হিসেবে বিবেচিত। আগে পাসপোর্টে ছবি সংযুক্ত করার প্রয়োজন হতো না,কিন্তু জালিয়াতি বেড়ে যাওয়ায় পরে ছবি সংযোজন হয়, এমন কি পারিবারিক ছবিও দেয়া যেত।

 

বিভিন্ন দেশের পাসপোর্টের রং বিভিন্ন হয়ে থাকে। পাসপোর্টের এক এক রং বিভিন্ন ধরণের গুরুত্বপূর্ণ নিদর্শন হিসেবে বিবেচিত হয়।তবে এগুলি এত গুরুত্বপূর্ণ হওয়া সত্ত্বেও আমরা তাদের নান্দনিক গুণাবলী খুব কমই বিবেচনা করি।

 

পাসপোর্টের রং বিভিন্ন হয় কেন?

আন্তর্জাতিক সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশনের তথ্য বলছে, দেশগুলিকে কেবল লাল, সবুজ, নীল বা কালো রং থেকে পাসপোর্টের রং বেছে নেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

বিভিন্ন রঙের পাসপোর্টের ছবি ©pinterest

 

লাল

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমস্ত সদস্যের কাছে লাল পাসপোর্ট রয়েছে। পাসপোর্টের সূচক পরিচালিত আর্টন গ্রুপের ভাইস প্রেসিডেন্ট হারেন্ট বোঘোসিয়ানের মতে, লাল পাসপোর্টগুলি একটি কমিউনিস্ট অতীতকেও ইঙ্গিত করতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, চাইনিজ এবং স্লোভেনীয় পাসপোর্টগুলি লাল।

 

সবুজ

রংও একটি দেশের প্রধান ধর্মকে প্রতিফলিত করতে পারে। সৌদি আরব, পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং ইন্দোনেশিয়ার মতো মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশগুলি সবুজ রংয়ের পাসপোর্টের অধিকারী। সবুজ রঙ ইসলামের রঙ হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

 

পশ্চিম আফ্রিকার বিভিন্ন রাজ্যের অর্থনৈতিক সম্প্রদায়ের রংও সবুজ এবং সদস্যদের সকলেরই তাদের জোটের প্রতিনিধিত্ব করার জন্য পাসপোর্টের রং সবুজ রেখোছে।

 

নীল

সবচেয়ে সাধারণ পাসপোর্টের রং নীল, ক্যারিবিয়ান সম্প্রদায়ের সদস্যদের (ক্যারিকোম) সকলেরই নীল পাসপোর্ট রয়েছে, যেমন ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা এবং ভেনিজুয়েলা। 

 

 তৃতীয় সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্টের দেশ  যুক্তরাষ্ট্র। আমেরিকা তাদের পতাকাটির প্রতিনিধিত্ব করতে নীল রংয়ের পাসপোর্ট ব্যবহার করে। ১৯৯৪ সালে নীল রংয়ের পাসপোর্ট ব্যবহারের আগে এই দেশ অতীতে লাল এবং সবুজ রংয়ের পাসপোর্ট ব্যবহার করেছে ।

 

কালো

নিউজিল্যান্ডের পাসপোর্ট কালো। চাদ, গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রের কঙ্গো, জাম্বিয়া, বোতসোয়ানা, মালাউই এবং ত্রিনিদাদ ও টোবাগো-র মতো আফ্রিকার কিছু দেশেরও কালো পাসপোর্ট রয়েছে। ইউএস কূটনৈতিক পাসপোর্টগুলি, যা ক্ষমতার ইঙ্গিত দেয়। আর এর ফলে বিমানবন্দর কর্মীরা তাদের অনুসন্ধান, বিলম্ব, আটক বা গ্রেপ্তার করতে পারে না।

 

এশিয়ার সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্ট কোনটি?

মালয়েশিয়ার পাসপোর্টকে বিশ্বের ১৩ তম “শক্তিশালী” হিসাবে স্থান দেওয়া হয়েছে, কারণ এই পাসপোর্ট হোল্ডাররা ১৪৮ টি দেশে ভিসামুক্ত প্রবেশাধিকার উপভোগ করছেন।

 

যদিও ২০২০ সালের হেনলি পাসপোর্ট সূচকে মালয়েশিয়ার র‌্যাঙ্কিং এবং গ্লোবাল মবিলিটি রিপোর্ট গত বছরের তুলনায় এক শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। এখনও এটি শীর্ষ চার এশীয় দেশগুলির মধ্যে রয়েছে, যেখানে “পাসপোর্ট পাওয়ার” রয়েছে।

 

জাপান, সিঙ্গাপুর এবং দক্ষিণ কোরিয়া – নামক আরও তিনটি এশীয় দেশ বিশ্ব সূচকে যথাক্রমে প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থান অর্জন করেছে।

 

আফগানিস্তান সূচকের নীচে রয়েছে, কারণ এর নাগরিকরা কেবলমাত্র ২৬ টি গন্তব্য ভিসামুক্ত ভাবে ভ্রমণ করতে পারে। হেনলি পাসপোর্ট সূচক হ’ল পূর্বের ভিসা ছাড়াই যে সমস্ত গন্তব্যধারীরা অ্যাক্সেস করতে পারত সেই গন্তব্যগুলির সংস্থান অনুসারে বিশ্বের সমস্ত পাসপোর্টের মূল র‌্যাঙ্কিং।

 

পাসপোর্ট-জনিত-কিছু-তথ্য
বাংলাদেশি পাসপোর্টের ছবি© pinterest

 

ই-পাসপোর্টের টুকিটাকি 

ই-পাসপোর্ট কথাটা আমরা বেশ কিছু আগে থেকে শুনে আসছি। ই-পাসপোর্ট হলো এমন একটা পাসপোর্ট যেখানে পলিমারের তৈরি একটি কার্ড থাকবে ও একটি এন্টেনা থাকবে। সেই কার্ডের ভিতর একটা চিপ থাকবে,যেখানে পাসপোর্ট বাহকের সব তথ্য সংরক্ষিত থাকবে।

 

ই পাসপোর্ট এ যে সব তথ্য বায়োমেট্রিক সংরক্ষনে থাকবে, তা হলো পাসপোর্টধারীর তিন ধরনের ছবি,দশ আঙুলের ছাপ ও আইরিশ। ফলে যে কোনো দেশের কর্তৃপক্ষ সহজেই ভ্রমনকারীর সম্পর্কে সব তথ্য জানতে পারবেন।

 

এমআরপি পাসপোর্টের প্রথমে তথ্য সম্বলিত যে দুটি পাতা থাকে তা ই-পাসপোর্টে থাকবে না।

 

ই-পাসপোর্টধারীরা ঝামেলা ছাড়াই ই-গেট ব্যবহার করে দ্রুত ইমিগ্রেশন পার হতে পারবে। এজন্য তাকে ভিসা চেকিং লাইনে দাঁড়াতে হবে না। গেটের কাছে দাঁড়িয়ে নির্দিষ্ট স্থানে পাসপোর্ট রাখলে স্বয়ংক্রীয়ভাবে ছবি তুলে নেয়া হবে,এরপর আঙুলের ছাপ পরীক্ষা করেনেয়া হবে সহজেই। কোনো সমস্যা না থাকলে খুব দ্রুত শেষ হবে ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া, আর সমস্যা থাকলে লালবাতি জ্বলে উঠবে ও সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত পাসপোর্টধারীকে ইমিগ্রেশন পার হতে দেয়া হবে না।

পাসপোর্ট-জনিত-কিছু-তথ্য
ই-পাসপোর্টের ছবি ©barta24

 

 ২০১৯ সালের জুলাই মাসে এই কর্মসূচি শুরু হওয়ার কথা থাকলেও অবশেষে মুজিব বর্ষ ২০২০ সালের ২২শে জানুয়ারি এটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়।

 

যে কোন প্রাপ্ত বয়স্ক বাংলাদেশি নাগরিক সব শর্ত পূরণ সাপেক্ষে ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

 

১৯৯৬ সালে ,সবার আগে ই-পাসপোর্টের এই প্রযুক্তি এনেছিল মালয়েশিয়া। উল্লেখ্য যে দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম দেশ এবং পৃথিবীর ১২০তম দেশ হিসেবে বাংলাদেশ প্রবেশ করলো ই পাসপোর্টের যুগে।

 

আরো পড়ুন : ড্রাইভিং লাইসেন্স ২০২১: কীভাবে কী করবেন?

 

ই-পাসপোর্টের সিস্টেম পরিচালিত হবে ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশন দ্বারা। এর ফলে সেন্ট্রাল ডাটাবেজ থেকে বিভিন্ন বিমানবন্দর, স্থল বন্দর,পুলিশ প্রশাসন, ইন্টারপোলের অথোরিটি সহজেই সব তথ্য যাচাই করতে পারবে। এতে করে সন্ত্রাসবাদ সহ অন্যান্য অপরাধ প্রবণতা ও কমে যাবে। এই পদ্ধতিতে ৩৮লেয়ার বিশিষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকায় জাল বা সমস্যাযুক্ত পাসপোর্টধারীরা এই নিরাপত্তা বেষ্টনী অতিক্রম করতে পারবেনা।

এমআরপি পাসপোর্ট আর নতুন করে ইস্যু হবে না। এখন থেকে যারা পাসপোর্ট করবেন সবাইকে ই পাসপোর্ট করতে হবে। পর্যায়ক্রমে সব এমআরপি পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে তা তুলে নেয়া হবে।

 

এমআরপি পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে তা রিনিউ করতে গেলেই সব তথ্য যাচাই করে ই-পাসপোর্ট দেয়া হবে।

 


This is a Bengali article on passport.

References-

1.Here’s What Passport Colors Really Mean Around the World

2.5 Steps to your e-Passport – E‑Passport Online Registration Portal

3.Powerful passports

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...